শিশুর ত্বকের যত্ন

1
539
child and mother
আলোকচিত্রী : মহসিন আহমেদ

শিশুর যত্নের ব্যাপারে আমরা অনেক রকম ভুল পদ্ধতির দ্বারা পরিচালিত হই। এতে অনেক সময় শিশুর ক্ষতিই হয়। তেমনি একটি বিষয় হলো শিশুর ত্বকের যত্ন। এখানে আমরা শিশুর ত্বকের যত্নের ব্যাপারে খোলামেলা আলোচনা করছি।

শিশুকে তেল মাখিয়ে রোদে ফেলে রাখা কোন কাজের কথা নয়। এতে তার ত্বক পুড়ে যেতে পারে। আর হাড় কতটা শক্ত হয় সেটা এখনও বিতর্কের বিষয়।
-সরষের তেল নয়। মাখতে চাইলে নারকেল তেল বা জুলপাই তেল মাখান। আর নারকেল তেল থেকে আদৌ ঠাণ্ডা লাগে না, ওটা ভুল ধারণা।
-তেল মাখানোর চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ হলো ম্যাসাজ বা দলাই-মলাই করা। সেটা বেবি লোশন দিয়ে দিব্যি চালানো যায়।
-মাথায় তেল অপ্রয়োজনীয়। নিয়মিত বেবি শ্যাম্পু ব্যবহারই বরং ভাল।
-চোখে কখনও কাজল দিতে নেই। কাজল ক্ষতিকর। নেইল পলিশ, লিপস্টিক ও নয়।
-শরীরের গাজগুলো পরিষ্কার রাখতে হবে যেমন, কুঁচকি বগল, গলা, বিশেষত একটু মোটাসোটা বাচ্চার ক্ষেত্রে। ডায়াপার থেকে ঘর্ষণজনিত প্রদাহ বা ছত্রাকের সংক্রমণ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
-কোন তিল-জড়–ল আছে কি-না দেখে নিন। সাদা, কমলা, বাদামি, গোল, চ্যাপ্টা, লম্বা তিল থেকে তাল যে কোন আকার বা আকৃতির। এর কোন গুটি বড় হওয়ার আগেই মিলিয়ে যায়, আর কিছু জড়–কের চিকিৎসা দরকার।
-বাচ্চার ত্বক স্বাভাবিকভাবেই নরম হওয়ার কথা। তুলতুলে যদি না হয়? শুকনো আঁশ আঁশ চামড়া যদি দেখেন বাচ্চাটির গায়ে? থাকতে পারে বংশগত অসুখ ইকথায়োসিস ভালগারিম। নিশ্চিত হয়ে নিন চিকিৎসকের কাছ থেকে।
-আর একটু বড় হওয়ার পর সঙ্গে সাদা ছোপ ছোপ দাগ (পিটিরিয়াসিম এলবা) হতে পারে। খুব সাধারণ অসুখ। যকৃতের সঙ্গে এর কোন যোগাযোগ নেই সহজেই সারে।
-এটেপিক জার্মাটাইবিক আর এমনি দীর্ঘ সূত্রি প্রদাহগুলো ত্বকের অসুখ।
-এছাড়া আমবাড় চুলকানি ইত্যাদি হতে পারে।

কি করবেন :

-নিয়মিত স্নান ও নখ কাটা খুব জরুরি।
-হালকা জামাকাপড় পরাবেন। শীতে প্রয়োজনমতো উলেল কাপড়চোপড় পরাবেন।
-বাচ্চাদের সাবান-শ্যাম্পু পাওয়া যায়। সেগুলো ব্যবহার করুন।
-ম্যাসাজ শিশুর শারীরিক ও মানসিক বৃদ্ধির জন্য ভাল। বেবি লোশন ব্যবহার করতে পারেন।
-রোগ প্রতিরোধক প্রচলিত টিকাগুলো অবশ্যই দিতে হবে।

কি করবেন না :

-জীবাণুনাশক সাবান ব্যবহার করা ক্ষতিকর। কসমেটিকসও নয়।
-মাথায় তেল দেয়ার প্রয়োজন নেই।
-গায়ে সরষের তেল নয়।
-কৃত্রিমভাবে খিদে বাড়ানোর ওষুধ শিশুদের দেয়া উচিত নয়।
-লিভার (যকৃত) টনিক জাতীয় জিনিস একেবারেই অপ্রয়োজনীয়।
-চুলকানি বা অন্য কোন সংক্রমণে বাজারে চালু হয়েছে মলম বা তেল ব্যবহার করলে বিপদ হতে পারে।

ডাঃ শাহজাদা সেলিম
বারডেম একাডেমী, শাহবাগ, ঢাকা
মোবাইলঃ ০১৭৪৫৯৯৯৯৯০, ০১৯১৯০০০০২২, ৯৬১৩৩৮৯

1 মন্তব্য

একটি রিপ্লাই দিন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.